শিল্প মন্ত্রণালয় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ || শিল্প মন্ত্রণালয় এ বিভিন্ন পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি || Job Circular 2021 ||

শিল্প মন্ত্রণালয় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ || শিল্প মন্ত্রণালয় এ বিভিন্ন পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি || Job Circular 2021 ||

Job Circular 2021


Related Searches-

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2021,বেসরকারি চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১,সরকারি চাকরির নতুন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১,নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১,সরকারি চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১,চলমান সকল সরকারি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১,সরকারি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১,সরকারি চাকরির লিস্ট ২০২১,www.gov.bd job circular 2021,Recent Job Circular 2021,Private job Circular 2021,NGO job Circular 2021,Job Circular 2021,Company Job Circular 2021,BRAC Job Circular 2021


শিল্প মন্ত্রণালয় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ || শিল্প মন্ত্রণালয় এ বিভিন্ন পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি || Job Circular 2021 ||

শিল্প মন্ত্রণালয় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ || শিল্প মন্ত্রণালয় এ বিভিন্ন পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি || Job Circular 2021 ||


Searches -

নতুন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2021
কারিগরি শিক্ষা বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
বেসরকারি চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
সরকারি চাকরির নতুন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ জুন
শিক্ষা অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
প্রভাষক পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
সার্ভেয়ার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
সরকারি চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
চলমান সকল সরকারি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
সরকারি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
নতুন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2021
সকল সরকারি চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
চলমান সকল সরকারি চাকরির খবর ২০২১
সরকারি চাকরির লিস্ট ২০২১
চলমান সরকারি চাকরির খবর ২০২১
NSI Job Circular 2021
www.gov.bd job circular 2021
Recent Job Circular 2021
Private job Circular 2021
NGO job Circular 2021
Job Circular 2021 Bangladesh
Company Job Circular 2021
BRAC Job Circular 2021



আবেদন করতে এখানে ক্লিক করুন -

http://moind.teletalk.com.bd/home.php



HSC Assignment Answer 2021 History [ এইচএসসি এসাইনমেন্ট ২০২১ ইতিহাস ]

HSC Assignment Answer 2021 History [ এইচএসসি এসাইনমেন্ট  ২০২১ ইতিহাস ] 

Related Searches

১ম সপ্তাহের অর্থনীতি এসাইনমেন্ট ১ ২০২১,hsc অর্থনীতি এসাইনমেন্ট ১,hsc 2021 all assignment,এইচএসসি ২০২১ অর্থনীতি ১ম পত্র এসাইনমেন্ট ১,hsc assignment 2021 economics 1,অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট ১ hsc,Talukder helpline assignment,hsc assignment এইচএসসি ২০২১ সালের অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্টের উত্তর, অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট এর সমাধান এইচএসসি ২০২১, এইচএসসি 2021 অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট এর সমাধান, HSC, HSC economics assignment answer 2021, 2021 economics assignment, economics assignment answer HSC 2021, HSC 2021, economics assignment solution HSC 2021, HSC first week assignment 2021, অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট এইচএসসি, এইচএসসি 2021 প্রথম সপ্তাহের অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট, অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট এর উত্তর, hsc assignment 2021



HSC Assignment Answer 2021 History [ এইচএসসি এসাইনমেন্ট  ২০২১ ইতিহাস ]

HSC Assignment Answer 2021 History [ এইচএসসি এসাইনমেন্ট  ২০২১ ইতিহাস ]


তৃতীয় অধ্যায়ঃ ইংরেজ ঔপনিবেশিক শাসন: ব্রিটিশ আমল

অ্যাসাইনমেন্টঃ

খিলাফত আন্দোলন ও অসহযোগ আন্দোলনের প্রকৃতি এবং ১৯৪০ সালের লাহোর প্রস্তাব ও এর বৈশিষ্ট্য নিরূপণ।

নির্দেশনাঃ

  1. খিলাফত আন্দোলনের প্রকৃতি ব্যাখ্যা। অসহযোগ আন্দোলনের প্রকৃতি ব্যাখ্যা।
  2. খিলাফত আন্দোলন ও অসহযোগ আন্দোলনের ফলাফল বিশ্লেষণ।
  3. লাহোর প্রস্তাবের প্রেক্ষাপট ও বৈশিষ্ট্য ব্যাখ্যা।

শিখনফল বিষয়বস্তুঃ

  • ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে ভারতবর্ষের খিলাফত আন্দোলন ও অসহযোগ আন্দোলনের গুরুত্ব বিশ্লেষণ করতে পারবে।
  • ব্রিটিশ শাসনামলে ভারতবর্ষের স্বাধিকার ও রাজনৈতিক আন্দোলনের ফলাফল মূল্যায়ন করতে পারবে।
  • লাহোর প্রস্তাবের প্রেক্ষাপট ও বৈশিষ্ট্য ব্যাখ্যা করতে পারবে।

HSC Assignment Answer 2021 History [ এইচএসসি এসাইনমেন্ট  ২০২১ ইতিহাস ]

উত্তরঃ

ক) খিলাফত আন্দোলনের প্রকৃতি:

ভারতের মুসলমানেরা তুরস্কের সুলতানকে মুসলিম বিশ্বের খলিফা বা ধর্মীয় নেতা বলে শ্রদ্ধা করতেন। কিন্তু তুরস্কের সুলতান ব্রিটিশবিরােধী শক্তি জার্মানির পক্ষ অবলম্বন করলে ভারতের মুসলমান সম্প্রদায় বিব্রত হন। কারণ ধর্মীয় কারণে তারা খলিফার অনুগত, আবার অন্যদিকে রাজনৈতিক কারণে ব্রিটিশ সরকারের অনুগত থাকতে বাধ্য। নিজ দেশের সরকার হিসেবে প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ভারতীয় মুসলমানরা ব্রিটিশ সরকারকেই সমর্থন দিয়েছে। তবে শর্ত ছিল যে এই সমর্থনের পরিপ্রেক্ষিতে ব্রিটিশ সরকার তুরস্কের খলিফার কোনাে ক্ষতি করবে না। কন্তু যুদ্ধে জার্মানি হেরে গেলে তুরস্কের ভাগ্যবিপর্যয় ঘটে। যুদ্ধ শেষে জার্মানির পক্ষে যােগদানের জন্য ১৯২০ সালের সেভার্সের চক্তি অনুযায়ী শাস্তিস্বরূপ তুরস্ককে খণ্ড-বিখণ্ডিত করার পরিকল্পনা করা হয়। এতে ভারতীয় মুসলমানরা মর্মাহত হয় এবং ভারতীয় মুসলমানরা খলিফার মর্যাদা এবং তুরস্কের অখণ্ডতা রক্ষার জন্য তুমুল আন্দোলন গড়ে তােলে, যা ইতিহাসে খিলাফত আন্দোলন নামে খ্যাত। এই আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন দুই ভাই মাওলানা মােহাম্মদ আলী, মাওলানা শওকত আলী এবং মওলানা আবুল কালাম আজাদ।


(খ) অসহযােগ আন্দোলন প্রকৃতি :

ব্রিটিশ সরকারের বিরুদ্ধে কংগ্রেসেরঅসহযােগ আন্দোলনের পেছনে বিভিন্ন কারণ ছিল। ১৯২০ খ্রিঃ মহাত্তা গান্ধী অসহযােগ আন্দোলনের ডাক দেন। ১৯১৯ খ্রিঃ সংস্কার আইন ভারতবাসীর আশা-আকাঙ্খ পূরণে ব্যর্থ হয়। তাছাড়া ব্রিটিশ সরকারের দমননীতির কারণে ব্রিটিশবিরােধী আন্দোলনের নতুন ধারার জন্ম দেয়। ১৯১৯ সালে সরকার রাওলাট আইন পাস করে। এই আইনে যেকোনাে ব্যক্তিকে পরােয়ানা ছাড়াই গ্রেফতার এবং সাক্ষ্য প্রমাণ ছাড়াই আদালতে দণ্ড দেয়ার ক্ষমতা পুলিশকে দেওয়া হয়। এই আইন ভারতের সর্বস্তরের মানুষকে বিক্ষুব্ধ করে তােলে। অহিংস আন্দোলনে বিশ্বাসী ভারতের রাজনীতিতে নবাগত (১৯১৭ খ্রিঃ যােগদান) মহাত্মা গান্ধীর ডাকে এই নিপীড়নমূলক আইনের বিরুদ্ধে ১৯১৯ খ্রিঃ ৬ এপ্রিল হরতাল পালিত হয়।

রাওলাট আইনের বিরুদ্ধে অন্যান্য স্থানের মতাে পাঞ্জাবেও আন্দোলন ওঠে। ১৩ এপ্রিল পাঞ্জাবের অমৃতসরে এক সভায় জেনারেল ডায়ারের, নির্দেশে বহু নিরস্ত্র মানুষকে নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়। ইতিহাসে এই নয়ায় হত্যাযজ্ঞের ঘটনা ‘জালিয়ানওয়ালাবাগের হত্যাকাণ্ড’ নামে পরিচিত। এই হত্যাকাণ্ডের তদন্তের জন্য কংগ্রেস বিশিষ্ট নেতৃবৃন্দকে নিয়ে এক তদন্তকমিটি গঠন করে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে ‘নাইট’ উপাধি বর্জন করেন। সরকারের দমননীতির পাশাপাশি চলে সংবাদপত্রে হস্তক্ষেপ। তাছাড়া মহাযুদ্ধের সৃষ্ট অর্থনৈতিক মহামন্দার কারণে নিত্যপ্রয়ােজনীয় জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধি পেলে সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক অসন্তোষ দেখা দেয়। এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে গান্ধীজি হিন্দুমুসলমান উভয় সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ করে ১৯২৩ খ্রিঃ অহিংস অসহযােগ আন্দোলনের আহ্বান জানান। ১৯২০ খ্রিঃ খিলাফত আন্দোলন ও অসহযােগ আন্দোলনের নেতৃবৃন্দ ঐক্যবদ্ধ কর্মসূচির মাধ্যমে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তােলেন। ১৯২১-২২ সাল পর্যন্তএই আন্দোলন সর্বভারতীয় গণ-আন্দোলনে রূপ নেয়।

HSC Assignment Answer 2021 History [ এইচএসসি এসাইনমেন্ট  ২০২১ ইতিহাস ]

(গ) খিলাফত ও অসহযােগ আন্দোলনের তাৎপর্য বিশ্লেষণ :

খিলাফত ও অসহযােগ আন্দোলন বিভিন্ন দিক থেকে তাৎপর্যপূর্ণ। এই আন্দোলনে | মাধ্যমে ভারতীয় মুসলমানরা যেমন প্রথমবারের মতাে ব্রিটিশবিরােধী আন্দোলনে যােগ দেয়, তেমন হিন্দু-মুসলিম

সম্প্রদায় প্রথমবারের মতাে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলনে নামে। কিছুদিনের জন্য হলেও ব্রিটিশ বিভেদ ও শাসননীতি ব্যর্থ হয়। ফলে হিন্দুমুসলমান ঐক্য ও সম্প্রীতির এক রাজনৈতিক আবহাওয়ার সৃষ্টি হয়। অপর দিকে এই ঐক্য ব্রিটিশ সরকারকে শঙ্কিত করে তােলে। এই আন্দোলন শুধু শিক্ষিত মুসলমান যুবকদের নয়, সারা ভারতের জনগণের মধ্যে এক রাজনৈতিক চেতনা ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করেছিল। তবে এই আন্দোলন এবং হিন্দু-মুসলিম ঐক্য দুই-ই ছিল ক্ষণস্থায়ী। আন্দোলনের অবসানের সঙ্গে সঙ্গে দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে আবার দূরত্ব সৃষ্টি হতে থাকে।


ঘ) লাহাের প্রস্তাবের প্রেক্ষাপট ও বৈশিষ্ট্য:

১৯৪০ সালের ২৩ মার্চ লাহােরে নিখিল ভারত মুসলিম লীগের বার্ষিক সম্মেলনে বাংলার কৃতি সন্তান শেরে বাংলা একে ফজলুল হক যে প্রস্তাব পাস করেন সে প্রস্তাব লাহাের প্রস্তাব নামে খ্যাত। লাহাের প্রস্তাবে বলা হয়, ভৌগােলিক অবস্থান অনুযায়ী সন্নিহিত স্থানসমূহকে অঞ্চল হিসেবে চিহ্নিত করতে হবে। প্রয়ােজনমতাে সীমা পরিবর্তন করে যেসব স্থানে মুসলমানরা সংখ্যাগরিষ্ঠ সেসব অঞ্চলসমূহের স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এসব স্বাধীন রাষ্ট্রের অঙ্গরাজ্যগুলাে হবে স্বায়ত্তশাসিত সার্বভৌম। রাহুল প্রস্তাবের ভিত্তিতে ১৯৪৭ সালের ১৪আগস্ট ভারত বিভক্ত হয়ে দুটি রাষ্ট্রের রূপান্তরিত হয়।

HSC Assignment Answer 2021 History [ এইচএসসি এসাইনমেন্ট  ২০২১ ইতিহাস ]

লাহাের প্রস্তাবের বৈশিষ্ট্য :

১৯৪০ সালের ২৩ মার্চ অবিভক্ত পাঞ্জাবের রাজধানী লাহােরে নিখিল ভারত মুসলিমলীগের অধিবেশনে অবিভক্ত বাংলার মুখ্যমন্ত্রী শেরে বাংলা এ.কে. ফজলুল হক “লাহাের প্রস্তাব পেশ করেন। বিপুল পরিমাণ উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ২৪ মার্চ প্রস্তাবটি গৃহীত হয়। নিচে লাহাের প্রস্তাবের মূল বৈশিষ্ট্যসমূহ দেওয়া হলাে:

১. ভারতবর্ষকে বিভক্ত করে এর উত্তর-পশ্চিম ও পূর্ব অঞ্চলে মুসলমান সংখ্যাগরিষ্ঠ এলাকা গুলাে নিয়ে স্বাধীন রাষ্ট্রসমূহ গঠন করতে হবে।

2. স্বাধীন রাষ্ট্র সমূহের অধীন ইউনিট বা প্রদেশগুলাে স্বায়ত্তশাসিত ও সার্বভৌম হবে।

3.ভারতের অন্যান্য হিন্দু অঞ্চলগুলাের সমন্বয়ে পৃথক হিন্দু রাষ্ট্র গঠি হবে।

4.সংখ্যালঘু সম্প্রদায়েরপ্রস্তাবের তাৎপর্য সাথে পরামর্শ ভিত্তিতে তাদের স্বার্থ অধিকার ও রক্ষার জন্য সংবিধানের পর্যাপ্ত ক্ষমতা রাখতে হবে।

5. প্রতিরক্ষা, পরস্বরাষ্ট্র ও যােগাযােগ ইত্যাদি বিষয়ে ক্ষমতা সংশ্লিষ্ট অঙ্গরাজ্যগুলাের উপর ন্যস্ত থাকবে।

অবশেষে বলা যায় যে, ঐতিহাসিক লাহাের প্রস্তাব অবিভক্ত ভারতের রাজনৈতিক অঙ্গনে অনন্যসাধারণ ভূমিকা পালন করে। লাহাের প্রস্তাব গৃহীত হবার পর মুসলিম লীগের রাজনীতিতে ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণের সুযােগ উপস্থিত হয়।

HSC Assignment Answer 2021 History [ এইচএসসি এসাইনমেন্ট  ২০২১ ইতিহাস ]

সকল শ্রেণির  এসাইনমেন্ট সমাধান পেতে এখানে Click করুন

Related Searches

একাদশ শ্রেণির এসাইনমেন্ট পৌরনীতি প্রশ্ন উত্তর ২০২১,
পৌরনীতি এসাইনমেন্ট ২০২১,
আলিম ১ম বর্ষের এসাইনমেন্ট পৌরনীতি,
এইচএসসি এসাইনমেন্ট ২০২১ সমাধান,
পৌরনীতি ও সুশাসন ১ম পত্র এসাইনমেন্ট ২য় সপ্তাহ,
পৌরনীতি ও সুশাসন ১ম পত্র সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর,
একাদশ শ্রেণির পৌরনীতি ও সুশাসন এসাইনমেন্ট উত্তর
hsc assignment 2021,  
hsc assignment civics answer 2021,
hsc 2021 civics assignment answer,
hsc assignment civics solution,
hsc assignment civics answer 1st week,
এইচএসসি পৌরনীতি এসাইনমেন্ট উত্তর,
এইচএসসি অ্যাসাইনমেন্ট পৌরনীতি উত্তর,
HSC assignment 2021 1st Week,
HSC assignment 2021 PDF download,
HSC assignment 2021 question,
Assignment hsc 2021 1st week answer,
HSC Assignment 2021 routine,
Hsc assignment 2021 answer chemistry,
Hsc assignment 2021 answer science,
Hsc assignment 2021 answer business studies,
Hsc assignment 2021 1st week science,


ষষ্ঠ শ্রেণির পড়াশোনা- "সততার পুরষ্কার" সৃজনশীল প্রশ্ন । মডেল-০১

ষষ্ঠ শ্রেণির পড়াশোনা- "সততার পুরষ্কার" সৃজনশীল প্রশ্ন । মডেল-০১

ষষ্ঠ শ্রেণির পড়াশোনা- "সততার পুরষ্কার"

হোম পেজে যেতে এখানে ক্লিক করুন-

১। সজিবের বাবা সজিবকে উপদেশ দিতে গিয়ে বলেন— কখনাে মিথ্যা কথা বলবে না।সর্বদা সত্য কথা বলবে। কেননা মিথ্যাবাদীকে কেউ পছন্দ করে না, তাদেরকে সকলেই ঘৃণা করে। পক্ষান্তরে সত্যবাদীকে সকলেই পছন্দ করে, তারা নানাভাবে এ পৃথিবীতে সুনাম অর্জন করতে পারে। তাই আমাদের সকলেরই উচিত সদা সত্য কথা বলা।


ক, সততার পুরস্কার' গল্পে তিনটি লােক কোন বংশের?

খ. "মিথ্যাবাদীকে সকলেই ঘৃণা করে।"- উক্তিটি বুঝিয়ে লেখ।

গ. উদ্দীপকটি ‘সততার পুরস্কার' গল্পের সাথে কোন দিক দিয়ে সাদৃশ্যপূর্ণ? ব্যাখ্যা কর। ৩

ঘ. সাদৃশ্য থাকলেও উদ্দীপকটি ‘সততার পুরস্কার' গল্পের সম্পূর্ণ ভাব ধারণ

করতে পারেনি মন্তব্যটি মূল্যায়ন কর।


২) পলাশপুর গ্রামের বাসিন্দা ইয়াকুব মিয়া, ছমির শেখ ও জবেদ আলী। তিনজনেরই

রয়েছে শারীরিক সীমাবদ্ধতা। এর মধ্যে ইয়াকুব মিয়া কানে কম শােনে এবং ছমির

শেখ কথা বলার সময় তােতলায়, জবেদ আলী পূর্ণ বয়সে উপনীত হলেও তার দাড়ি-

গোঁফ ওঠেনি। তারা আল্লাহর কাছে কান্নাকাটি করে এ অবস্থা থেকে মুক্তি চায় ।

ভালাে হলে সারাজীবন তারা আল্লাহর এবাদত-বন্দেগিতে নিয়ােজিত থাকবে বলে

শপথ করে । আল্লাহর দয়ায় এক সময় তারা সম্পূর্ণ সুস্থ হয়, কিন্তু সুস্থ হয়েই ইয়াকুব

মিয়া এবং ছমির শেখ আল্লাহর কাছে তাদের শপথের কথা ভুলে যায় । কিন্তু জবেদ

আলী রুটি-রােজগারের পর পুরাে সময় আল্লাহর এবাদতে মগ্ন থাকে।


ক, কে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাতত্ত্ব বিভাগের প্রথম ছাত্র ছিলেন?

খ. স্বর্গীয় দূত মানুষের রূপ ধরে এসেছিলেন কেন?

গ. উদ্দীপকের জবেদ আলী ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের কার প্রতিচ্ছবি? ৩

ঘ. উদ্দীপকটি 'সততার পুরস্কার’ গল্পের মূলভাবকে ধারণ করেছে-

মন্তব্যটির যথার্থতা বিচার কর ।


প্রতিদিনের করোনা আপডেট - এখানে দেখুন


৩। লােকমান জন্মের পর পরই কুষ্ঠ রােগী। তার সঙ্গে কেউ মিশত না, কথা বলত না। এ

নিয়ে তার দুঃখের কোনাে সীমা ছিল না। একদিন মনের দুঃখে পথ চলতে চলতে গভীর

অরণ্যে চলে যায়। সেখানে দেখা হয় এক কবিরাজের সাথে । সে তাকে কুষ্ঠ রােগ

সারিয়ে দেয় । লােকমান মনের আনন্দে বাড়ি ফিরে। এরূপ একদিন সেই কবিরাজ

বিপদে পড়লে কুষ্ঠ রােগী তাকে চিনতে না পারার ভান করে তাড়িয়ে দেয়।


ক. ধবল রােগী কার সাথে মিথ্যা বলেছিল?

খ, আল্লাহ তার ফেরেশতাকে কেন পাঠিয়েছিলেন?

গ. উদ্দীপকের লােকমানের সাথে ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের কোন চরিত্রটির

মিল খুঁজে পাও?

ঘ. উদ্দীপকের লােকমান যেন 'সততার পুরস্কার’ গল্পের ধবলরােগীরই

সহজাত বন্ধু।- মন্তব্যটি বিশ্লেষণ কর।


৪। একদিন এক বাঘের গলায় হাড় বিধে। বাঘ যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকে ।

এরপর বাঘ ঘােষণা করে, যে তার গলার হাড় বের করে দেরে তাকে সে সােনার

হার উপহার দেবে। পুরস্কারের লােভে এক বক এসে তার লম্বা ঠোট বাঘের মুখে

ঢুকিয়ে তার গলা থেকে হাড় বের করে আনে। এরপর বক তার পুরস্কার চাইলে

বাঘ পুরস্কার দিতে অস্বীকার করে।



ক. সততার পুরস্কার' গল্পের লেখক কে? 

খ. স্বর্গীয় দূত বলতে কী বােঝ?

গ. উল্লেখিত উদ্দীপকে ‘সততার পুরস্কার' গল্পের যে দিক গুলো ফুটে ওঠেছে তা ব্যাখ্যা কর। ৩

ঘ. 'সততার পুরস্কার' গল্পের ধবল রােগী ও টাকওয়ালা চরিত্রের সাদৃশ্য ব্যাখ্যা কর। । 

ষষ্ঠ শ্রেণির পড়াশোনা

৫। হাসান ও কামাল দুই বন্ধু। একদিন বাড়িতে না এসে স্কুল ফাঁকি দিয়ে তারা মেলায় চলে

যায়। মেলা থেকে ফিরে বাড়ি গেলে হাসানের বাবা- হাসানকে জিজ্ঞেস করে কোথায়

গিয়েছিলে, হাসান মিথ্যা কথা না বলে সত্য কথা বলে দেয় মেলায় গিয়েছিলাম; ছেলের

সত্য কথা বলা দেখে হাসানের বাবা হাসানকে মাফ করে দেয়। অন্যদিকে কামালের

বাবাও কামালকে জিজ্ঞেস করে কোথায় গিয়েছিলে? কামাল মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে বলেছে

স্কুলে গিয়েছিলাম। পরে কামালের বাবা জানতে পারে স্কুলে না গিয়ে কামাল মেলায়

গিয়েছিল এবং মিথ্যা কথা বলার জন্য কামালকে শাস্তি দেয়।


ক, 'সততার পুরস্কার’ গল্পের রচয়িতা কে?

খ. "মিথ্যার পরিনাম ভয়ংকর।"- উক্তিটি ব্যাখ্যা কর।

গ. উদ্দীপকের হাসান ও কামালের মানসিকতার পার্থক্য নিরূপণ কর।

ঘ. উদ্দীপকের প্রতিপাদ্য বিষয় 'সততার পুরস্কার' গল্পের আলােকে বিশ্লেষণ কর। 

 এইচএসসি'র সকল প্রশ্ন ও সাজেশন পেতে - এখানে ক্লিক করুন 

৬) রহিমের মা রহিমকে এক মিথ্যাবাদী রাখালের গল্প শােনায়। গল্পটি এ রকম-

প্রতিদিন এক রাখাল মাঠে গরু চরাতে যায় এবং দুপুর বেলায় বাঘ, বাঘ বলে

চিক্কার করলে মানুষজন তাকে উদ্ধার করতে এগিয়ে যায়। কিন্তু গিয়ে দেখে

বাঘ বলতে কিছু নেই। এভাবে সে দুবার এমন করলে তিনবারের মাথায় আর

কেউ এগিয়ে যায়নি। কিন্তু তিনবারের সময় সত্যি সত্যিই তাকে বাঘে আক্রমণ

করে এবং বাঘ তাকে খেয়ে ফেলে। রাখাল তার মিথ্যাবাদিতার জন্যই এমন

নির্মম আক্রমণের শিকার হয়ে সে তার উপযুক্ত শাস্তি পেয়েছে।


ক, অন্ধ লােকটিকে ফেরেশতা কী দেন?

খ. “আল্লাহ তােমাকে আবার তেমনি করিবেন।”- ব্যাখ্যা কর।

গ, মিথ্যাবাদী রাখালের মতাে তুমি একটি গল্প লেখ যার জন্য মিথ্যাবাদীকে

শাস্তি পেতে হয়েছিল।

ঘ, রাখালের নির্মম পরিণতির কারণ ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের আলােকে বিশ্লেষণ কর।